Notice :
Welcome To Our Website...
শিশু সোয়াইব হত্যা মামলায় তিন আসামির মৃত্যুদন্ড

শিশু সোয়াইব হত্যা মামলায় তিন আসামির মৃত্যুদন্ড

নারায়ণগঞ্জ ॥ নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে পাঁচ বছরের শিশু সোয়াইব হোসেন হত্যা মামলায় তিন আসামির মৃত্যুদন্ড ও এক আসামির দশ বছরের কারাদন্ড দিয়েছেন আদালত। হত্যাকান্ডের দীর্ঘ সাত বছর পর সোমবার দুপুরে নারায়ণগঞ্জের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ ১ম আদালতের বিচারক শেখ রাজিয়া সুলতানা দন্ডপ্রাপ্ত চার আসামির উপস্থিতিতে এ রায় প্রদান করেন।

ফাঁসির দন্ডপ্রাপ্ত আসামিরা হলেন- জসিম উদ্দিন, রাজু মিয়া ও ফজল হক এবং ১০ বছরের কারাদন্ডপ্রাপ্ত আসামি হলেন নাছির উদ্দিন। আদালত এই মামলায় রিনা, মোশরফ হোসেন, আবদুর রহিম ও আবদুস সালাম নামে চার আসামিকে খালাস দিয়েছেন। রায়ের এ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন নারায়ণগঞ্জ কোর্ট পুলিশের পরিদর্শক মোঃ আসাদুজ্জামান।

মামলা সূত্রে জানা যায়, ২০১৩ সালের ২০ ফেব্র“য়ারি সোনারগাঁ উপজেলার মঙ্গলেরগাঁও এলাকায় শান্তিনগর দারুন নাজাত নূরানী মাদ্রাসার প্রথম শ্রেণীর ছাত্র সোয়াইব হোসেন নিখোঁজ হন। ঘটনার ছয়দিন পর ওই এলাকার একটি নির্মাণাধীন ভবনের পাশ থেকে সোয়াইব হোসেনের গলাকাটা ও শরীর ঝলসে দেয়া লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

এ ঘটনায় নিহত সোয়াইবের বাবা নাজমুল হোসেন মাসুম ছেলেকে অপহরণের পর হত্যার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগ এনে মোশারফ হোসেন, রাজু মিয়া, ফজল হক, জসিম উদ্দিন, শিরসতালী, নাছির উদ্দিন, আলী আহাম্মদ ও রিনা বেগমসহ ১৩ জনকে আসামি করে সোনারগাঁ থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন।

এই মামলায় পুলিশ আসামি মোশারফ হোসেন, রাজু মিয়া, নাছির উদ্দিন, ফজল মিয়া, সিরাসতালী ও আলী আহাম্মদসহ আরো কয়েকজনকে গ্রেফতার করে। পরে আসামিরা শিশু সোয়াইবকে অপহরণের পর হত্যার দায় স্বীকার করে নারায়ণগঞ্জের সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট চাঁদনী রুপমের আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দিও প্রদান করে। জবানবন্দিতে আসামিরা আদালতকে জানায়, নারীঘটিত বিরোধের কারণে শিশু সোয়াইব হোসেনকে অপহরণের পর প্রথমে গলা কেটে জবাই করে হত্যা করে। পরে শরীরের বিভিন্ন অঙ্গ কেটে বিচ্ছিন্ন করে এসিড দিয়ে শিশুটির পুরো শরীর ঝলছে দেয় তারা।

তবে রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবি আব্দূর রহিম। তিনি জানান, আদালত সাক্ষ্যপ্রমাণের ভিত্তিতে তিন আসামীকে মৃত্যুদন্ড ও এক আসামীকে ১০ বছরের সাজা দিয়েছেন।

নিহত সোয়াইবের বাবা নাজমূল হোসেন রায়ে অসন্তোষ প্রকাশ করে বলেন, এই মামলায় আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয়া সকল আসামির মৃত্যুদন্ড প্রত্যাশা করেছিলাম। কিন্তূ আদালত তিনজনের মৃত্যুদন্ড প্রদান করেছেন। এ ব্যাপারে তিনি উচ্চ আদালতে আপীল করবেন যাতে সব আসামীর সাজা হয়।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2017 doorbin24.Com