Notice :
Welcome To Our Website...
পদ্মার ঢেউ ও’রে ,মোর শূণ্য হৃদয় পদ্ম নিয়ে যা, যা..রে

পদ্মার ঢেউ ও’রে ,মোর শূণ্য হৃদয় পদ্ম নিয়ে যা, যা..রে

মোশাররফ হোসেন : বাংলাদেশের ফুটবল এখন আর গ্যালারিতে পদ্মার ঢেউ তোলেনা।বঙ্গোপসাগরের ঊর্মিমালার মত গ্যালারি দুলে ওঠেনা ।জাতীয় খেলায় দর্শক উপচে পড়ে না । কেবল বিদেশী দল এনে কিংবা বিদেশী খেলোয়াড় নিয়ে টুর্ণামেন্ট হলে মাঠে দর্শকদের ঢল নামে ।এর কারণ বহুবিদ । তবে খেলা ও খেলোয়াড়ের মান এবং সাংগঠনিক ব্যর্থতাই মূখ্য কারণ । বিশ্বকাপসহ বিভিন্ন টুর্ণামেন্টের খেলা টিভি , কম্পিউটার ,ট্যাব  এবং মোবাইলে সরাসরি দেখতে পাওয়ায় মাঠে দেখার আগ্রহ দর্শকদের থাকেনা। গ্যালারিতে দর্শকদের খরা শুরু হয়েছে ২০ থেকে ২৫ বছর আগে । এ থেকে উত্তরনের পুরো দায়িত্ব ফুটবল সংগঠকদের ওপর বর্তায় । তা না পারলে যারা পারবে তাদের জায়গা ছেড়ে দেয়া উচিত বলে বাংলাদেশ দলের সাবেক খেলোযাড় , অভিজ্ঞ ফুটবল সংগঠক ও বিশেষজ্ঞরা মনে করেন । এ বিষয়ে দেশে ও বিদেশে বসাবসকারি সংশ্লিষ্টদের সংগে কথা বলে এ তথ্য জানা গেছে ।

মুক্তিযুদ্ধকালীন ̄ স্বাধীন বাংলা ফুটবল দলের ম্যানেজার ও ঢাকা আবাহনীর পরিচালক, বিসিবির সাবেক সাধারন সম্পাদক ও ক্রিকেটার , নিবেদিত প্রাণ ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক সংগঠক ,ঢাকা আবাহনীর প্রতিষ্ঠাতা ও মুক্তিযোদ্ধা মরহুম শেখ কামালের বন্ধু তানভীর মাজহারুল ইসলাম তান্না মিডিয়ার সঙ্গে ঢাকায় আলাপকালে বলেছেন , “নুতনদের জন্য জায়গা ছেড়ে দেয়া উচিত ”। তিনি বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের আসন্ন নির্বাচন প্রসঙ্গে এক প্রশ্নের উত্তরে ভোটারদের প্রতি আহবান জানিয়ে বুধবার একথা বলেন । আসলে ফুটবল সংগঠকদের সামনে এখন বড় দায়িত্ব । তারাই নেবেন সময়োচিত সঠিক সিদ্ধান্ত । এ প্রসঙ্গে বলা যায় যুক্তরাষ্ট্রের নির্বাচনে বারাক ওবামা জিতেছিলেন “আমরা পরিবর্তন চাই ” শ্লোগান তুলে । আগামী নির্বাচনে টধাম্পের “ আমরা আমেরিকান ” শ্লোগান পরিবর্তন হয়েছে ।

করোনা থেকে আমেরিকানদের রক্ষা করতে ব্যর্থ হওয়ার পর এখন অর্থনৈতিক পরিবর্তনের কথা বলছেন । অপেক্ষা করতে হবে আসলে ট্রাম্প কী চান ।তার দেয়া প্রতিশ্রুতি বেশিরভাগ আলোর মূখ দেখেনি । বিশ্ব পরাশক্তি রাশিয়া ,চীন , ফ্রান্সসহ ইউরোপ ,উত্তর আমেরিকা,দক্ষিণ আমেরিকা কারও সাথে সম্পর্ক ভাল নেই । এমনকি করোনা সংকট থেকে মানুষ রক্ষার জন্য জাতিসংঘকে সহযোগিতাও করছেননা । বিশ্ব স্বাস্থ সংস্থা থেকে বেরিয়ে গেছে যুক্তরাষ্ট্র । বিশ্ব নেতৃত্ব এখন আর ট্রাম্পকে বিশ্বাস করেনা । হোয়াইট হাউজে নিজ স্টাফ বদলে রেকর্ড গড়েছেন এত কথা লেখার কারণ একটি । বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের আসন্ন নির্বাচনে কী হতে যাচ্ছে ? কেউ কথা রাখেনি ..কেউ কথা রাখে না.. ।

বাংলাদেশের কিংবদন্তি ফুটবল খেলোয়াড় ও বাফুফের বর্তমান সভাপতি কাজী সালাউদ্দিন । ১২ বছর তিনি এ মহা দায়িত্ব পালন করছেন । ২০১৬ সালে ফুটবলের উন্নয়নে ২৫টি প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন । ২০২০ সালের আসন্ন নির্বাচনে দিয়েছেন ৩৬টি প্রতিশ্রুতি । ২০০৮থেকে ২০১২ উন্নয়ন হয়েছে । গেল ৮ বছর তার বিরুদ্ধে অভিযোগে ভরপুর । চারভাগের একভাগ প্রতিশ্রুতি রক্ষা করেছেন । ২০১২ সালে বিশ্বকাপ খেলার স্বপ্ন দেখিয়ে‘ভিশন ২০২২’ ঘোষনা করেছিলেন এক্ষেত্রে কোন কাজ হয়নি । এবার তিনি ২০২৪ সালের মধ্যে  ফিফা র‌্যাংকিং ১৮৭ থেকে ১৫০ ও নারী ফুটবল দলকে ৯০ নম্বরে উন্নীত করবেন বলে নির্বাচনী ইশতেহারে ঘোষনা দিয়েছেন । একই সাথে তিনি জাতীয় দল , বয়সভিত্তিক ফুটবল লীগ ,প্রতিজেলায় ফুটবল একাডেমি ,তৃণমূল ফুটবলার ক্সতরি , আন্তর্জাতিক মানের ফুটবল স্টেডিয়ামসহ উন্নয়নের ধারাবাহিকতার কথা ঘোষনা করেছেন ।

উল্লেখ্য সম্মিলিত পরিষদের নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষনার সংবাদ সম্মেলনে ২০১৬সালের নির্বাচনী ইশতেহার সম্পর্কিত এক সাংবাদিকের প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন , সেটা আমার নয় । আমার নির্বাচন সমন্বয়ক তরফদার রুহুল আমিনের । ফুটবল ফেডারেশনের আসন্ন নির্বাাচনে ২০০৮ থেকে ২০২০ সাল পর্যন্ত বাফুফে সহ সভাপতি ,ডাকসুর সাবেক ক্রীড়া সম্পাদক ও ব্লু ,জাতীয় ফুটবল দলের সাবেক মিডফিল্ডার বাদল রায় অসুস্থ অবস্থায় সভাপতি পদে প্রতিদন্দিতা করার জন্য মনোনয়ন পত্র জমা দেন । পরবর্তীতে অসুস্থাতার কথা বলে ঘোষিত সময়ের পরে নির্বাচন থেকেসরে দাঁড়ান । ঢাকা মোহামেডান ক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন , সালাউদ্দিন অনেক শক্তিশালি। আমাকে কেন হয়রানি করছেন । ফুটবলই আমার সব । একথা বলেই কেঁদে ফেলেন । পরে তিনি বলেন ,তৃণমূলের সংগঠকরা অসহায় । ফুটবলকে তলানি থেকে ওপরে তুলতে পারবে তৃণমূল ।

তারা যাকে ভাল মনে করবে তাকে ভোট দেবেন । তিনি বলেন ,অনেকে মনে করছেন নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর জন্য আমার ওপরে চাপ আছে । আমি ওভাবে বলবোনা । এরকম অবস্থায়ও ফুটবল কোচ ও সাবেক ফুটবল খেলোয়াড় শফিকুল ইসলাম মানি সভাপতি পদে নির্বাচন করছেন । তিনি জাতীয় যুব ফুটবল দলকে বিশ্ব যুব ফুটবলের মূল পর্বে খেলানোর  স্বপ্ন দেখাচ্ছেন । অথচ যারা দীর্ঘ ৫০ বছর ধরে বাংলাদেশের শীর্ষ ক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা সংগঠক, কিংবদন্তি ফুটবলার তৈরি করেছেন  খেলিয়েছেন দেশে ও বিদেশে ।ক্রিকেট , হকি মাঠ জমজমাট রেখেছেন । দেশসেরা খেলোয়াড়দের নিয়ে সেরা দল গড়েছেন । এনেছে বিশ্বকাপ খেলা ফুটবলার সামির সাকির, সের্গেই ,রহিমভঝুকভ, নালজে,জেগার, নাসের হেজাজি, চিমা ওকেরি । কোলকাতা ইস্ট বেঙ্গলের ভাস্কর গাঙ্গুলি, কৃষানু দে যেমন খেলেছেন ঢাকা আবাহনীতে । তেমনি আবাহনীর শেখ আসলাম ,মোনেম মুন্না , রিজভি করিম রুমি খেলেছেন ইস্ট বেঙ্গলে । ঢাকা মোহামেডানের কায়সার হামিদ ,সৈয়দ রুম্মান বিন ওয়ালি সাব্বির , মানিক খেলেছেন কোলকাতা মোহামেডানে । জমজমাট ছিল উপমহাদেশের ফুটবল । সেই ত্যাগি ফুটবল সংগঠকরা বাফুফে নির্বাচনে সভাপতি পদে কেন নেই । মনে রাখা দরকার দক্ষ সংগঠকরাই তলানি থেকে ফুটবলকে টেনে তুলতে পারবেন।

এখানে‘ ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট’ বিষয়টি খুবই ̧রুত্বপূর্ণ । তখনকার ত্যাগি নেতৃত্বের আয়োজনে বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়াম ও মিরপুর শেরে বাংলা স্টেডিয়ামে দর্শক থাকতো কানায় কানায় পূর্ণ । গ্যালারিতে পদ্মা নদী ও বঙ্গপসাগরের ঢেউ তুলতো । আবাহনী ও মোহামডান দ্বৈরতের দিন সারাদেশ উৎসবে মেতে উঠতো অথচ এখন গ্যালারি ফাঁকা থাকে , শূণ্য থাকে । অনেক কারণের সঙ্গে অর্থসংকট, দক্ষতা ও ত্যাগী মনোভাবের অভাব মূল কারণ । ফুটবল প্রেমিকরা আশা করে আসন্ন নির্বাচনে প্রতিদন্দিতা থাকবে খেলার মত । জয় পরাজয় থাকবে । এ কাজে কেউ কাউকে অন্যয়ভাবে বাধা দেয়া মাঠের আইনে ‘লাল কার্ড ’ দেখাবেন নির্বাচন কমিশন । তা না হলে সমাজ ও রাষ্ট্র থেকে ‘খেলোয়াড় সুলভ ’ মনোভাব হরিয়ে যাবে । এটা ভুলে গেলে ক্ষতি হবে দেশের ক্রীড়াঙ্গনের ।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.




© All rights reserved © 2017 doorbin24.Com