Notice :
Welcome To Our Website...
জেমস বন্ড চরিত্রে সর্বকালের সেরা শন কনারি

জেমস বন্ড চরিত্রে সর্বকালের সেরা শন কনারি

‘জেমস বন্ড’। বিশ্বজুড়ে জনপ্রিয় নাম। এ নামটিই একটি ব্রান্ড। এ নামের উপর কোটি কোটি টাকা লগ্নি হয় সিনেমায়। সেই টাকা উঠেও আসে খুব সহজেই। যারা গোয়েন্দা-রহস্য বা অ্যাকশন-থ্রিলার মুডের ছবি দেখতে পছন্দ করেন তাদের কাছে জেমন বন্ড সবসময়ই ‘স্পেশাল ওয়ান’।

বিখ্যাত ঔপন্যাসিক ইয়ান ফ্লেমিংয়ের সৃষ্ট উপন্যাসের কাল্পনিক চরিত্র জেমস বন্ড। একে নিয়ে সিরিজ আকারে নির্মিত অসংখ্য উপন্যাস, চলচ্চিত্র, কমিকস এবং ভিডিও গেম দুনিয়াজোড়া জনপ্রিয়তা পেয়েছে।

বিশেষ করে জেমন বন্ডকে নিয়ে তৈরি সিনেমাগুলো দর্শককে মুগ্ধ করেছে বারবার। এ পর্যন্ত এই চরিত্রে অভিনয় করেছেন শন কনারি, জর্জ ল্যাজেনবি, রজার মুরে, টিমোথি ডাল্টন, পিয়ার্স ব্রুসনান এবং ড্যানিয়েল ক্রেইগের মতো নন্দিত অভিনেতারা।

তবে জনপ্রিয় এই বন্ড সিরিজের সব থেকে জনপ্রিয় অভিনেতা কে? এমন প্রশ্নে রেডিও টাইমসের একটি জরিপে সবার শীর্ষে উঠে এসেছে ৮৯ বছর বয়সী শন কনারির নাম। টাইমসের এই পুলে প্রথম রাউন্ডে ৫৬ এবং শেষ রাউন্ডে ৪৪ শতাংশ ভোট নিয়ে প্রথম অবস্থানে আছেন তিনি।তবে চূড়ান্ত রাউন্ডে সবাইকে অনেকটা অবাক করেই দ্বিতীয় অবস্থানে চলে আসেন টিমোথি ডাল্টন। তিনি ৩২ শতাংশ ভোট পেয়েছেন। তৃতীয়তে থাকা পিয়ার্স ব্রুসনান পেয়েছেন ২৩ শতাংশ ভোট।

গুপ্তচর হিসেবে জেমস বন্ডের নাম ভূমিকায় অভিনয়ের মাধ্যমে দর্শকের নজরে আসেন শন কনারি। বন্ড সিরিজের প্রথম পাঁচটি ছবিতে অভিনয় করেছেন তিনি। ছবিগুলো হলো ‘ড. নো’ (১৯৬২), ‘ফ্রম রাশিয়া উইথ লাভ’ (১৯৬৩), ‘গোল্ডফিঙ্গার’ (১৯৬৪), ‘থান্ডারবল’ (১৯৬৫) এবং ‘ইউ অনলি লাইভ টুয়াইস’ (১৯৬৭)।

মাঝে বিরতি দিয়ে তিনি আবারও জেমস বন্ড হয়ে ফিরে আসেন ১৯৭১ সালে ‘ডায়মণ্ডস আর ফরএভার’ ছবি দিয়ে। এরপর ‘নেভার সে নেভার এগেইন’ (১৯৮৩) ছবিতেও তাকে বন্ড হিসেবে দেখা যায়।

বলার অপেক্ষা রাখে না শন কনারি অভিনীত বন্ড সিরিজের ৭টি চলচ্চিত্রই বাণিজ্যিকভাবে ব্যাপক সাফল্য পেয়েছে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2017 doorbin24.Com